ভূমিকম্প ঝুঁকিতে বাংলাদেশ

তিন মহাদেশীয় প্লেটের চাপে দেশে ৮ মাত্রার ভূমিকম্পের আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। অপরিকল্পিত নগরায়নে উদ্ধারকাজ কঠিন হবে বলে মন্তব্য করেছেন বিশেষজ্ঞরা।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সিলেটে অল্প সময়ে পাঁচটি ছোট ছোট ভূমিকম্প সেই আভাসই দিচ্ছে। আবহাওয়া অধিদপ্তরও বলছে, ভৌগলিক অবস্থানের কারণে অনেক দিন ধরেই ভূমিকম্প ঝুঁকিতে রয়েছে সিলেট ও চট্টগ্রাম।

ইন্ডিয়ান, ইউরেশিয়ান ও বার্মা তিনটি গতিশীল প্লেটের সংযোগস্থলে বাংলাদেশের অবস্থান। এর মধ্যে ইন্ডিয়ান প্লেট ও বার্মা প্লেটের সংযোগস্থলে অবস্থিত সিলেট যার উত্তরে ডাউকি ফল্ট।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই প্লেটগুলো খুবই সক্রিয় ও পরস্পরের দিকে ধাবমান। যে কারণে প্রচুর শক্তি জমেছে। ফলে, অতিমাত্রায় ভূমিকম্প ঝুঁকিতে বাংলাদেশ।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণায় দেখা গেছে, ডাউকি ফল্ট এবং সিলেট থেকে টেকনাফ ও চট্টগ্রামের পাহাড়ি অঞ্চলে গত ৫০০ থেকে ১০০০ বছরে বড় ভূমিকম্পের উৎপত্তি হয়নি। গবেষকরা বলছেন, সিলেটের সাম্প্রতিক ভূমিকম্পগুলোকে বড় ভূমিকম্পের পূর্বাভাস ধরে নেয়া যায়।

আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, সিলেট অঞ্চল দীর্ঘদিন ধরেই ভূমিকম্প ঝুঁকিতে রয়েছে। তবে ছোট ছোট ভূমিকম্প হয়ে শক্তি বের হওয়াকে ইতিবাচক মনে করা হচ্ছে।

১৮৯৭ সালে ডাউকি ফল্টের পশ্চিমে ৮ দশমিক ৭ মাত্রার ভূমিকম্প হয়েছিল। যা এই ভূখণ্ডে সর্বোচ্চ।

নিউজটি শেয়ার করুন
Total Page Visits: 112 - Today Page Visits: 3

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *